দাঁত শিরশির করে কেন

দাঁতের সেনসেটিভিটি সমস্যা কেন হয়? দাঁতের শিরশিরানি কমানোর উপায়

আপনার মনে কি কখনও বিস্ময়ের উদ্রেক হয়েছে যে, দাঁত শিরশির করে কেন? কীভাবে আমাদের দাঁত সেনসেটিভ হয়ে ওঠে? দাঁতের sensitivity বা শিরশিরানি দূর করার উপায় কী আপনি জানেন! কি মনে হয়, সেনসেটিভিটি কমাতে খুব শক্তি দিয়ে দাঁত ব্রাশ করা কি ঠিক?

গরমের রোদে বেশ কয়েক ঘন্টা ধরে খেলে এসে বরফ ঠান্ডা গ্লাসে লেবু জল পান করে নিজেকে তরতাজা করতে চাচ্ছেন, তখনই দাঁতে তীব্র শিরশিরানি অনুভব করতে পারবেন। আপনার তৃষ্ণা নিবারণের আনন্দটি হঠাৎ ব্যথায় পরিবর্তিত হয়। বরফ-ঠান্ডা তরল আপনার দাঁতে লাগার সাথে সাথে অস্বস্তিকর অনুভূতি দেখা দেয়।

যদি আপনি কখনও এমন দাঁতের সমস্যায় ভুগে থাকেন তবে আপনিও লক্ষ লক্ষ লোকের মতো দাঁতের সেনসেটিভিটি সমস্যায় ভুগছেন। এটি বর্তমানে একটি সাধারণ সমস্যা হয়ে দাড়িয়েছে।

দাঁতের সেনসিটিভিটি হলে প্রথমে আমাদের এটা জানতে হবে যে সেনসিটিভিটি কি? কি কি কারণে হয় এবং প্রতিরোধপ্রতিকার কিভাবে করা যায়?

দাঁতের শিরশিরানি, দাঁতের সেনসেটিভিটি সমস্যা

দাঁতের সেনসিটিভিটি বা শিরশিরানি সমস্যা কেন হয়

আমাদের সবচেয়ে উপরের অংশ হচ্ছে এনামেল যাকে আমরা সবাই দাঁত হিসেবে চিনি। এনামেলের ভিতরের অংশ হচ্ছে ডেন্টিন। যদি কোন কারনে এই ডেন্টিন উন্মুক্ত হয়ে যায় তবে সেনসিটিভিটি অনুভূত হবে। ডেন্টিন সরাসরি স্নায়ুতন্ত্রের সাথে যুক্ত। কোনো কিছু ডেন্টিনের সংস্পর্শে আসবে তখন তা সরাসরি উত্তেজনার সৃষ্টি করবে। এটিকে আমরা দাঁতের শিরশিরানি বা সেনসিটিভিটি বলে থাকি।

দাঁতের সেনসিটিভিটির লক্ষণ

কোন কিছু খেলে দাঁতে শিরশির অনুভূত হতে পারে, অনেক সময় অস্বস্তি অনুভূত হতে পারে। এমনকি দাঁত ব্যথাও হতে পারে। প্রকৃতপক্ষে যার সেনসিটিভিটি হয় তিনিই অভিযোগ করবেন।

কি কি কারনে সেনসিটিভিটি হয়?

 

১.দাঁতের ক্ষয়
দাঁতের ক্ষয় বা ক্যাভিটি হচ্ছে অথবা প্রথম কারণ। দাঁত ক্ষয় হলে বলতে এনামেলের ক্ষয় কে বুঝানো হয়। আর যখন এনামেল ক্ষতিগ্রস্ত হয় তখনই ডেন্টিন বাইরে বেরিয়ে আসে এবং শিরশিরানির সৃষ্টি করে। দাঁত হয় অনেকভাবে ক্ষয় হতে পারে
• বয়সের সাথে সাথে দাঁত ক্ষয়ে যেতে পারে
• রাতে ঘুমের মাঝে দাঁতে দাঁতে ঘর্ষণ হলে
• দুর্ঘটনার জন্য দাঁত ভেঙে গেলে

২. মাড়ির সমস্যা

অনেক সময় মাড়ির সমস্যা থেকে সেনসিটিভিটি হয়ে থাকে। মাড়ি ফুলে গেলে বা মাড়ির কোনো রোগ থাকলে সেনসিটিভিটি হতে পারে। মাড়ি ক্ষয় হয়েও সেনসিটিভিটি সৃষ্টি হতে পারে।
৩. এসিডিক খাবার যেমন: লেবু পানি ইত্যাদি পান করলে সেনসিটিভিটি হতে পারে।
৪. দীর্ঘদিন মাউথওয়াশ ব্যবহার করলে সেনসিটিভিটি হতে পারে।
৫. ভুলভাবে দাঁত ব্রাশ করলে বা শক্ত টুথব্রাশ ব্যবহার করলে দাঁত বা মাড়ি ক্ষয় হয় সেনসিটিভিটি হতে পারে।
৬. রুট ক্যানেল, ক্রাউন রিপ্লেসমেন্ট বা দাঁতের রিস্টোরেশন করলেও অনেকসময় দাতের সেনসিটিভিটি হতে পারে।

৭. অনেক পুরনো কোনো ফিলিং করানো থাকলে সেনসিটিভিটি সৃষ্টি হতে পারে।

দাঁতের সেনসিটিভিটি হলে করণীয় কি?

আমরা অনেকেই মনে করি যে দাঁতের সেনসিটিভিটি সাময়িক। এটি হলে আবার চলে যায়। দাঁতের সেনসিটিভিটি সাময়িক হতে পারে আবার দীর্ঘদিনের জন্যও হতে পারে। প্রায় সময় সেনসিটিভিটি সাময়িক সময়ের জন্য হয়। কিন্তু এটা নিয়ে বসে থাকা যাবেনা। যখন প্রথম শুরু হয় তখনই ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে। যদি প্রথম অবস্থায় ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া যায় তাহলে শিরশিরানি আর কখনো ফিরে আসেনা।

দাঁতের শিরশিরানি কমানোর উপায়

  • প্রতিদিন সকাল এবং রাতে নিয়ম করে দাঁত ব্রাশ করতে হবে। রাত্রে ঘুমানোর আগে এবং সকালে নাস্তার আধাঘন্টা পরে এক মিনিট বা দুই মিনিট সময় নিয়ে দাঁত ব্রাশ করতে হবে। দাঁত ব্রাশ করার সময় মাড়ি এবং জিহ্বাও ব্রাশ করতে হবে।
  • কেমিক্যাল যুক্ত খাবার এড়িয়ে চলতে হবে কারণ কেমিক্যালযুক্ত যুক্ত খাবারের জন্য সেনসিটিভিটি হয়ে থাকে।
  • ফ্লোরাইড সমৃদ্ধ টুথপেস্ট ব্যবহার করলে ভালো ফলাফল পাওয়া যায়।
  • নরম ব্রাশ ব্যবহার করা উচিত।
  • অন্তত ছয় মাস পর পর ডাক্তারের পরামর্শ নেয়া উচিত।
  • এক্ষেত্রে ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী টুথব্রাশ আর টুথপেস্ট ব্যবহার করা যেতে পারে।
  • শক্ত খাবার যথাসম্ভব এড়িয়ে চলতে হবে কারণ এতে দাঁত ক্ষয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

দাঁতের সেনসিটিভিটি সমস্যা বেশি দেখা দিলে একজন ডেন্টিস্ট এর পরামর্শ নিন। দাঁতের শিরশিরানি কমানোর উপায় হিসেবে ফিলিং করে নিলে বেশ উপকার পাওয়া যায়।

2 thoughts on “দাঁতের সেনসেটিভিটি সমস্যা কেন হয়? দাঁতের শিরশিরানি কমানোর উপায়”

  1. এমন কোন ট্যাবলেট আছে যেটা দাতের শিরশিরানি দ্রুত কমাতে পারে???

  2. দুঃখিত জনাব, আমরা কোন মেডিকেল এজেন্সি না হওয়ায় মেডিসিন প্রেসক্রাইব করতে পারছি না।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Social Share Buttons and Icons powered by Ultimatelysocial